মাত্রাতিরিক্ত ডায়েটেই কী শেষ হলেন ওয়ার্ন!

Slider খেলা

১৪ দিন শুধু মাত্র তরল জাতীয় খাদ্য গ্রহণ করেছে সদ্যই পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে পরকালের পথে পাড়ি জমানো শেন ওয়ার্ন। প্রায়শই এমন ভাবেই  ডায়েট করতেন। এমনকি মারা যাবার আগেও তিনি টানা ১৪ দিন শুধুমাত্র তরল ডায়েট করেছিলেন বলে জানিয়েছেন তাঁর ম্যানেজার জেমস এরস্কিন। এই ডায়েট মেনে চলাকালীন সময়ে তিনি বেশ কয়েকবার অতিরিক্ত ঘাম হওয়া ও বুকে ব্যাথার বিষয়ে জানিয়েছিলেন বলেও জানান তাঁর ম্যানেজার। তারপর সেই ডায়েটের ১৪ দিন শেষ হওয়ার পর শেন ওয়ার্ন তাঁর বন্ধুদের সাথে ঘুরতে এসেছিলেন থাইল্যান্ডে। কে জানতো এটাই হবে তাঁর শেষ আনন্দযাত্রা?

শেন ওয়ার্ন কোন ধরণের তর্ক ছাড়াই তিনি ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা বোলারদের একজন। আর স্পিনার হিসেবে উপরের দিকেই তাঁর অবস্থান। তিনি তাঁর খেলোয়াড়ি জীবনে মাতিয়ে রেখেছিলেন দর্শকদের। অকল্পনীয় সব ঘূর্ণিতে হতভম্ব হয়ে থাকত বাইশ গজে তাঁর বিপরীতে ব্যাট করা ব্যাটাররা। সেই সাথে মুগ্ধতা নিয়ে তাঁর বোলিং দেখতেন সকলে।

হঠাৎ করেই খবর এলো তিনি আর নেই। তাঁর অস্তিত্বের প্রয়াণ ঘটেছে। শেন ওয়ার্নকে দেখা যাবে না বিভিন্ন অনুষ্ঠানে। শোনা হবে না তাঁর ক্রিকেট বিশ্লেষণ। সম্ভবত হৃদযন্ত্রের কার্যকারিতা বন্ধ হয়েই মারা যান ৫২ বছর বয়সী শেন ওয়ার্ন। এমনটাই ধারণা করছেন থাইল্যান্ডের পুলিশ।

তাছাড়া তাঁর দীর্ঘদিনের সহযোগী জেমস এরস্কিনও তাই মনে করেন। তিনি বলেন, ‘তাঁর জীবনের একটা বড় সময় ধূমপানের সাথে যুক্ত ছিলেন। আমিও যদিও তাঁর মৃত্যুর বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানিনা। তবে ধারণা করছি বড় ধরণের হার্ট অ্যাটাক থেকেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে।’

থাই পুলিশ আরো জানিয়েছে যে তাঁর সাথে কোন ধরণের বল প্রয়োগের প্রমাণ পাওয়া যায়নি প্রাথমিক তদন্তে। তবে থাইল্যান্ডে থাকাকালীন সময়ে একজন হার্টের ডাক্তারের পরামর্শ নিয়েছিলেন বলেও জানিয়েছে থাই পুলিশ। থাইল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকাল পাঁচটা নাগাদ ওয়ার্নের এক বন্ধু তাঁকে অচেতন অবস্থায় দেখেন। মূলত বন্ধুদের সাথেই ঘুরতে গিয়েছিলেন তিনি সেখানে।

ব্যক্তিগত জীবনে খুব একটা শৃঙ্খলতা মেনে চলতেন ওয়ার্ন তার প্রমাণ মেলে না। তবে তিনি বেশকিছু দিন ধরেই নেশাজাতীয় দ্রব্য থেকে দূরে ছিলেন। তাঁর সোশ্যাল মিডিয়া আইডি থেকে নিজের শারীরিক গঢ়নের উন্নতির বিষয়েও নিজের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিলেন তিনি। তাছাড়া থাইল্যান্ডে ঘুরতে গিয়েও মাত্রাতিরিক্ত কোনো কিছু করেছেন তিনি তাঁর প্রমাণ পায়নি থাই পুলিশ।

তাছাড়া একজন প্যারামেডিক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছিলেন ওয়ার্নকে অবচেতন অবস্থায় পাওয়ার পর। সেই প্যারামেডিকও জানিয়েছেন তাঁর ভাড়া করা বাগান বাড়িতে কোন ধরণের পার্টির আলামত মেলেনি। তাছাড়া তাঁর বন্ধুদের সবাই খুব বেশি চিন্তিত হয়ে পড়েন ওয়ার্নকে অচেতন অবস্থায় দেখে। তাঁদের মধ্যে কেউ কেউ কান্নাকাটিও করেছেন বলে জানান সেই প্যারামেডিশিয়ান।

তাছাড়া শেষ বেলায় তাঁর খাবারও ছিলো অতিসাধারণ। তাঁর সাথে রাতের খাবার খাওয়া তারই এক বন্ধু জানান তিনি সাধারণ থাই খাবারের সাথে পাউরুটির সাথে ভেজিটিমেট নামক এক অস্ট্রেলিয়ান খাদ্যদ্রব্য মিশিয়ে খেয়েছিলেন। কার্যত সেটাই ছিলো তাঁর শেষ খাবার। ওয়ার্নের মতো একজন কিংবদন্তির এমন আকস্মিক প্রয়াণে কেঁদেছে সবার মন। আর সেই শোকেও কিছু রহস্য উঁকি দিচ্ছে না কি?