এসএমএস না পেলেও দেওয়া যাবে বুস্টার ডোজ

Slider স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলছেন, করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার চার মাস পরেই বুস্টার ডোজ নেওয়া যাবে। তিনি বলেন, কেউ যদি এসএমএস না পায়, তার পরও কেন্দ্রে এলেই বুস্টার ডোজ দেওয়া হবে।

বুধবার (১৬ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে ২৬তম জাতীয় কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহ উদ্‌যাপন উপলক্ষ্যে আয়োজিত অবহিতকরণ সভায় এসব কথা বলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, আমরা সফলভাবে টিকা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। করোনাকালীন সময়ে যখন সব সেবা বন্ধ ছিল, আমরা আমাদের হাসপাতালগুলোতে সব সেবা কার্যক্রম চালিয়েছি। করোনার পাশাপাশি নন-কোভিড রোগীদেরও সেবা দিয়েছি। এখন করোনা সংক্রমণ কমে এসেছে, এখনও আমরা একসঙ্গে দুটি সেবাই চালিয়ে যাচ্ছি।

মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে বিশেষ ক্যাম্পেইন হাতে নিয়েছে সরকার। প্রথম, দ্বিতীয় ও বুস্টার ডোজ মিলে ১৭ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশে মোট ৩ কোটি ২৫ লাখ মানুষকে করোনা টিকা দেবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। শিশুদের টিকা বিষয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গে আমরা যোগাযোগ রাখছি। তাদের অনুমোদন পেলে দেশে ১২ বছরের কম বয়সী শিশুদের টিকা দেওয়া শুরু হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এরই মধ্যে দেশে ১২ কোটি ৬২ লাখ প্রথম ডোজ, নয় কোটি চার লাখ দ্বিতীয় ডোজ এবং ৫০ লাখ বুস্টার ডোজ দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে ২২ কোটির বেশি টিকা দেওয়া হয়েছে। দেশে টিকার কোনো অভাব নেই।