যৌতুক না পাওয়ায় পরপর তিন বিয়ে! স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করলো প্রথম স্ত্রী

ইসলামী ও জীবন

বিহারের বাঁকা জেলার ধানকুন্ড থানার ভাতুয়াচক গ্রামের এক ব্যাক্তি যৌতুকের দাবি পূরণ না হওয়ায় পরপর তিনটি বিয়ে করে সবাইকে অবাক করে দিলেন এক ব্যক্তি। ওই ব্যক্তির নাম হল সঞ্জয় মন্ডল। এই ঘটনায় সঞ্জয়ের প্রথম স্ত্রী ডেইজি দেবী ধানকুণ্ড থানায় তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে।

ডেইজি দেবী জানিয়েছে, বিয়ের পর কিছুদিন সবকিছু ঠিক থাকলেও কয়েক মাস পর থেকে যৌতুকের টাকা ও গয়না দাবি করতে থাকেন তাঁর স্বামী। দাবি পূরণ না হলে ফের বিবাহ করে নেওয়ার ও বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার হুমকিও শুরু হয়। এদিকে, স্বামীর পাশাপাশি, তাঁর শাশুড়িও ক্রমাগত যৌতুকের দাবি জানিয়ে আসেন তাঁকে।

এমতাবস্থায়, মুঙ্গের জেলার আসারগঞ্জের অমাইয়ার সঙ্গে সঞ্জয় মণ্ডল দ্বিতীয় বিয়ে করে নেন। যদিও, এর পরেই তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী প্রতারিত হতে হয়েছে দেখে ডেইজি দেবীকে বাড়ি থেকে তাড়ানোর জন্য চাপ দিতে থাকেন। কিন্তু, কিছুদিন পরে সঞ্জয়ের দ্বিতীয় স্ত্রী বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যান এবং আবার বিয়েও করে নেন। তারপরে আবার ডেইজি দেবীর ওপর নির্যাতনের ধারা অব্যাহত রাখেন শ্বশুরবাড়ির লোকেরা।

এদিকে, মহাশিবরাত্রির দিনে সঞ্জয় মণ্ডল আবারও ভাতুয়াচকের বাসিন্দা রঞ্জু দেবীকে বিয়ে করেন। তাঁর একটি কন্যা সন্তানও ছিল। যদিও, তৃতীয় বিয়ের কয়েকদিন পরই ডেইজি দেবীকে তাঁর স্বামী এবং তৃতীয় স্ত্রী মিলে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেন। নির্যাতিতা জানান, বিয়ের এত দিন পরও তিনি সব রকম চেষ্টা করে ঘরে থাকতে চেয়েছিলেন। কিন্তু স্বামী, শাশুড়ি সহ অন্যান্যরা তাঁকে বাড়ি থেকে তাড়ানোর চেষ্টা করছেন।

এই বিষয়ে ধানকুন্ড থানার অফিসার অভিনন্দন কুমার সিং জানান, একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ওই মহিলার তোলা অভিযোগের সুষ্ঠু তদন্ত করে তাঁকে ন্যায়বিচার পেতে সাহায্য করা হবে। ইতিমধ্যেই সঞ্জয় মণ্ডলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।