খোলার কয়েক ঘণ্টা পরই আফগানিস্তানে মেয়েদের স্কুল বন্ধ

সারাবিশ্ব

সাত মাস বন্ধ থাকার পর আফগানিস্তানে খুলেছিল মেয়েদের উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়। তালেবান সরকার স্কুল খোলার কয়েক ঘণ্টা পরই তা আবার বন্ধ ঘোষণা করেছে। বুধবার আল জাজিরা এ খবর জানায়।

মাধ্যমিক বিদ্যালয় বন্ধ হয়ে যাওয়ার অর্থ হচ্ছে- আফগানিস্তানে মেয়েদের জন্য ষষ্ঠ-এর উপরের শ্রেণিগুলোতে পঠনপাঠনের সুযোগ থাকছে না।

বুধবার আফগানিস্তানের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তির বরাত দিয়ে দেশটির সরকার নিয়ন্ত্রিত বার্তাসংস্থা বখতার জানায়, আফগান সংস্কৃতি ও ইসলামিক আইনের আদলে একটি পরিকল্পনা বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত মেয়েদের স্কুল বন্ধ থাকবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘আমরা মেয়েদের সব মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং যেসব বিদ্যালয়ে ষষ্ঠের ওপরের শ্রেণিগুলোতে মেয়েরা লেখাপড়া করে, সেগুলো পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখতে বলছি।’

এ নিয়ে তালেবান মুখপাত্র ইনামউল্লাহ সমনগানির কাছে জানতে চায় বার্তাসংস্থা এএফপি। তিনি ‘হ্যা’ সূচক জবাব দিয়েছেন।

স্কুল বন্ধ রাখার কারণ নিয়ে তিনি গণমাধ্যমের কাছে কিছু বলতে চাননি। তবে আফগানিস্তানের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আজিজ আহমাদ রাইয়ান বলেন, ‘এ বিষয়ে মন্তব্য করতে আমাদের অনুমতি দেয়া হয়নি।’

এ নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন লন্ডনভিত্তিক সাংবাদিক ও আফগান রাজনীতিক শুকরিয়া বারাকজাই। তিনি বলেন, ‘এটা খুব হতাশাজনক যে, মেয়েরা স্কুলে ফেরার দিনের জন্য অপেক্ষা করছিল। এটা প্রমাণিত হলো যে, তালেবানদের ওপর আস্থা রাখা যায় না; তারা তাদের অঙ্গীকার পুরণ করে না।’

গত বছরের ১৫ আগস্ট কাবুলে ক্ষমতাসীন হয় তালেবানরা। এর পরই নারী শিক্ষায় আঘাত আসতে পারে- পশ্চিমের দেশগুলো এমন শঙ্কা প্রকাশ করে আসছিল।