শরিকরা সরছেন, ঝুঁকিতে ইমরান খানের প্রধানমন্ত্রিত্ব

Slider সারাবিশ্ব

অনাস্থা ভোটকে সামনে রেখে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ওপর ক্রমেই চাপ বাড়ছে। তার জোটের কয়েকটি শরিক দল বিরোধীদের সঙ্গে হাত মেলাতে যাচ্ছেন বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। এতে বিপাকে পড়তে যাচ্ছে ইমরান খানের পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ সরকার (পিটিআই)।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত পাকিস্তানের দ্য ডন অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

জোট শক্ত রাখতে সম্প্রতি পিটিআইয়ের একটি প্রতিনিধি দল মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট (এমকিউএম) পার্টির নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

সরকারি একটি সূত্র দ্য ডনকে জানিয়েছে, ইমরান খান পিটিআইয়ের রাজনৈতিক কমিটি সভায় জোটের শরিকরা যে বিরোধীদের দিকে এগোনোর চেষ্টা করছে, সে বিষয়ে সতর্ক করেছেন।

তিনি বলেছেন, কয়েকটি শরিক দল ইতোমধ্যে বিরোধীদের সঙ্গে হাত মেলানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং অনাস্থা ভোটে তারা পিটিআইকে সমর্থন না-ও করতে পারে।

এ প্রেক্ষাপটে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী জ্যেষ্ঠ পিটিআই নেতাদের বলেছেন, তারা যেনো শরিক দলগুলোর শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন এবং তাদেরকে বলেন যে, তাদের দাবি-দাওয়া গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা হবে।

তিনি প্রত্যাশা করেন যে, শরিক দলগুলো পার্লামেন্টে (অনাস্থা) ভোটাভুটির দিনে তার সরকারের পাশে থাকবে।

এ প্রসঙ্গে পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরি বলেন, আগামী ৪৮ ঘণ্টা ‘অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ’। এ সময়ের মধ্যে জটিলতা পরিষ্কার হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। তার প্রত্যাশা, শরিক দলগুলো ইমরান খানের পাশেই থাকবে।

তিনি জানান, এ প্রেক্ষাপটে অনাস্থা ভোটের আগে আগামী ২৭ মার্চ প্যারেড গ্রাউন্ডে বৃহৎ সভার ডাক দিয়েছেন ইমরান খান।