মালালা: নারীশিক্ষা স্থায়ীভাবে বন্ধ রাখতে পারবে না তালেবান

Slider সারাবিশ্ব

মালালা ইউসুফজাইয়ের বরাবরের দ্বন্দ্ব মৌলবাদী শক্তির সঙ্গে। তিনি এর শিকারও হয়েছেন। সম্প্রতি আফগানিস্তানে তালেবান আগ্রাসন নিয়েও উদ্বিগ্ন থেকেছেন মালাল। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন তিনি। আফগানিস্তানে নারীশিক্ষায় তালেবানের নিষেধাজ্ঞা দীর্ঘস্থায়ী হবে না বলে মনে করছেন শান্তিতে নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজাই।

তিনি জোর দিয়ে বলেন, আফগান নারীরা এখন জানে, ‘ক্ষমতায়নে’র মানে কী। গত সপ্তাহে মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়গুলি খোলার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সেগুলি বন্ধ ঘোষণা করে তালেবান সরকার। এর প্রতিবাদে স্কুলছাত্রী ও মহিলারা কাবুলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বাইরে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

শনিবার কাতারে দোহা ফোরামে দেয়া বক্তৃতায় মালালা বলেন, ‘আমি মনে করি, ১৯৯৬ সালে নারীশিক্ষার উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ তালেবানের জন্য তুলনামূলক সহজ ছিল কিন্তু এ সময়ে এসে এটা কঠিন। কারণ, নারীরা দেখেছেন, শিক্ষিত হওয়ার মানে কী, ক্ষমতায়নের মানে কী। ফলে নারীশিক্ষায় নিষেধাজ্ঞা রাখা এ সময়ে তালেবানের পক্ষে কঠিন হবে। তাই এ নিষেধাজ্ঞা স্থায়ী হবে না।’

তালেবান ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার সময় আফগানিস্তানে নারীশিক্ষা বন্ধ করে দিয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে সামরিক অভিযানের মাধ্যমে তাদের ক্ষমতা থেকে সরানো হয়। মার্কিন বাহিনী প্রত্যাহার করে নেয়া হলে গত বছরের আগস্টে আবারও ক্ষমতায় ফেরে তালেবান।
সূত্র: জি নিউজ