অস্তিত্ব হুমকিতে পড়লেই পরমাণু হামলা: রাশিয়া

Slider সারাবিশ্ব

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ভোর থেকে ইউরোপের দেশ ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালাচ্ছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পরাশক্তি রাশিয়া। এরই মধ্যে ইউক্রেনের বেশ কয়েকটি নগরী দখল করে নিয়েছে রুশ সেনারা। এই এক মাসেই কার্যত ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে পূর্ব ইউরোপের এই দেশটির অনেক শহর। উত্তেজনার পারদ বাড়তে থাকায় বাড়ছে রুশ পারমাণবিক অস্ত্রের ব্যবহারের আশঙ্কাও।

তবে মস্কো বলছে, রাশিয়ার অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়লেই কেবল পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করা হবে। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সরকারি বাসভবন ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ এক সাক্ষাৎকারে একথা বলেছেন। মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোমবার (২৮ মার্চ) পিবিএস’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন, ইউক্রেনের সাথে বর্তমান সংঘর্ষের কারণে নয় বরং ‘রাষ্ট্রের অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়লেই’ কেবল পারমাণবিক অস্ত্রের আশ্রয় নেবে রাশিয়া।
সাক্ষাৎকারে পেসকভ বলেন, ‘ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের কোনো ফলাফল অবশ্যই পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের কারণ হবে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘নিরাপত্তার বিষয়ে আমাদের একটি নীতিমালা রয়েছে। সেখানে খুব স্পষ্টভাবে বলে দেওয়া আছে যে, রাষ্ট্রের অস্তিত্বের জন্য হুমকি থাকলেই কেবল আমরা (পারমাণবিক অস্ত্র) ব্যবহার করতে পারি এবং আমরা আসলেই দেশের অস্তিত্বের জন্য হুমকি দূর করতে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করব।’