রাশিয়ার বিরুদ্ধে ‘গণহত্যা’র অভিযোগ জেলেনস্কির

Slider right সারাবিশ্ব

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি রাশিয়ার বিরুদ্ধে তার দেশে ‘গণহত্যা’ চালানোর অভিযোগ তুলেছেন। জেলেনস্কি রোববার সিবিএস ‘ফেস দ্য নেশন’ নিউজ প্রোগ্রামকে বলেন, ‘আসলে, এটা গণহত্যা। পুরো জাতি ও জনগণকে নির্মূলকরণ।’ খবর আল জাজিরার।

তিনি বলেন, ‘আমরা ইউক্রেনের নাগরিক এবং আমরা রুশ ফেডারেশনের নীতির বশীভূত হতে চাই না। এ কারণেই আমরা ধ্বংস ও নির্মূল হয়ে যাচ্ছি।’

সম্প্রতি ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের কাছে বুচা শহর ছেড়ে যায় রুশ বাহিনী। এ প্রেক্ষাপটে ইউক্রেনের কর্মকর্তারা ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুচায় রুশ বাহিনীর হাতে বহু বেসামরিক লোকজন নিহত হয়েছেন।

কার্যত ইউক্রেন বুচায় একটি ‘গণহত্যা’ চালানোর জন্য রুশ বাহিনীকে অভিযুক্ত করছে। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ইউক্রেনের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, ফুটেজ ও ছবির মাধ্যমে বুচায় মৃতদেহ দেখানো ইউক্রেন সরকারের ‘আরও একটি উসকানি।’

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, বুচায় ‘একজন বেসামরিক নাগরিকও রুশ সামরিক বাহিনীর দ্বারা কোন সহিংস পদক্ষেপের সম্মুখীন হয়নি’।

ইউক্রেন সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, শনিবার তাদের বাহিনী পুরো কিয়েভ অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ পুনরুদ্ধার করেছে এবং বেশ কিছু শহর রুশ সেনাদের হাত থেকে মুক্ত করার পর বুচা থেকে এ চিত্রগুলো এসেছে।

জাতিসংঘ বলছে, বুচার গণকরব আবিস্কৃত হওয়ার ঘটনা যুদ্ধাপরাধ সংগঠিত হওয়ার সম্ভাবনা সম্পর্কিত গুরুতর অনেক প্রশ্নকে সামনে এনেছে।

এর আগে রোববার (৩ এপ্রিল) জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে ঘোষণা দেন, বিশ্ব সংস্থাটি ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের পার্শ্ববর্তী বুচা শহরে গণহত্যার তদন্ত করবে।