ইদে ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু ২৩ এপ্রিল

Slider জাতীয়

ইদুল ফিতর সামনে রেখে আগামী ২৩ এপ্রিল থেকে ইদযাত্রার আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হবে। এছাড়া ২৫ এপ্রিল থেকে সব ট্রেনের সাপ্তাহিক ছুটি বন্ধ থাকবে। ইদযাত্রায় টিকিট কালোবাজারি ঠেকাতে স্টেশনে টহল ও নজরদারিও থাকবে।

রোববার (১০ এপ্রিল) রাতে রেলপথ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র সারাবাংলাকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, প্রথম দিন অর্থাৎ ২৩ এপ্রিল বিক্রি হবে ২৭ এপ্রিলের টিকিট। এরপর ২৪ এপ্রিল ২৮ এপ্রিলের, ২৫ এপ্রিল ২৯ এপ্রিলের, ২৬ এপ্রিল ৩০ এপ্রিলের এবং ২৭ এপ্রিল ১ মে’র ট্রেনের টিকিট বিক্রি করা হবে। ইদের পর ফিরতি যাত্রা শুরু হবে ৫ মে। সেই টিকিট বিক্রি হবে ১ মে।

চাঁদ দেখাসাপেক্ষে ২ মে পবিত্র ইদুল ফিতর উদযাপন করা হবে ধরে নিয়ে টিকিট বিক্রির এই সময়সূচি নির্ধারণ করেছে রেলওয়ে। রোজা ৩০টি হলে অর্থাৎ ৩ মে ইদ হলে ২৮ এপ্রিল বিক্রি করা হবে ২ মে’র ট্রেনের টিকিট।

এর আগে, গত দুই বছর করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে ইদুল ফিতরের সময় ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। সে হিসাবে দুই বছর পর ইদযাত্রা ফিরছে ট্রেনে। তবে এবার আগে মতো ১০ দিন আগে নয়, স্বাভাবিক সময়ের মতোই পাঁচ দিন আগে আগাম টিকিট বিক্রি হবে। ইদযাত্রার বিক্রিত টিকিট ফেরতে নেবে না রেল।

মন্ত্রণালয় সূত্রটি জানায়, আগামীকাল সোমবার (১১ এপ্রিল) রেলওয়ে মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনের সভাপতিত্বে একটি বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। বৈঠকে ইদযাত্রায় নিয়মিত ১০২টি আন্তঃনগর ট্রেনের পাশাপাশি ছয় জোড়া স্পেশাল ট্রেন চলাচল, ইদের আগে ঢাকা-কলকতা রুটের মৈত্রী এক্সপ্রেস চালু না হলে তার ইঞ্জিন বগি দিয়ে খুলনা স্পেশাল নামে ঢাকা-খুলনা রুটে একটি বাড়তি ট্রেন চালানো, ইদের দিন শোলাকিয়া স্পেশাল নামে এক জোড়া ট্রেন চালানো ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনার কথা রয়েছে।

রেলওয়ে বলছে, ইদের সময় যাত্রী পরিবহন সক্ষমতা বাড়াতে ৯৩টি অতিরিক্ত বগি যুক্ত হবে রেলের বহরে। সকাল ৮টা থেকে কাউন্টারে টিকিট বিক্রি হবে। অনলাইনে টিকিট দেওয়া হবে সকাল ৬টা থেকে। কমলাপুর স্টেশনে ২৩টি কাউন্টারে টিকিট বিক্রি হবে। একটি কাউন্টার থাকবে নারীদের জন্য সংরক্ষিত। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে কাউন্টারে এবং অনলাইনে সকাল ৬টা থেকে টিকিট বিক্রি শুরু হবে।