ধর্মের কারণে অভিনয় ছাড়লেন ঈশিকা

বিনোদন

বাংলাদেশের জনপ্রিয় মুখ ঈশিকা খান । অভিনয়ের পাশাপাশি বিজ্ঞাপনের মডেল ও উপস্থাপক হিসেবেও অনেক প্রশংসিত হয়েছেন তিনি। মডেল হিসাবে একটি বিজ্ঞাপনে আত্মপ্রকাশ করেন তিনি। এরপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। তারপর নাটকে অভিনয় শুরু করেন। ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন তিনি। অল্প সময়েই তৈরি করেন উল্লেখযোগ্য ভক্তশ্রেণি। তবে বর্তমান সময়ে অনেকদিন ধরেই শোবিজে দেখা নেই ঈশিকা। ক্যারিয়ারের স্বর্ণালী সময়ে হঠাৎ বিয়ে করে ফেলেন। লন্ডন প্রবাসী এক ব্যবসায়ীর সঙ্গে ঘর বাঁধেন। এরপর পাড়ি জমান লন্ডনে। সেখানেই স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন।

সম্প্রতি ঈশিকা জানান, অভিনয়ে আর ফেরার চিন্তা-ভাবনা নেই তার। সংসার ও ধর্ম নিয়েই তার যত মনযোগ। গণমাধ্যমকে সুদর্শনা এ অভিনেত্রী বলেন, ‘আমি অভিনয়ে আর নিয়মিত হতে পারছি না। সে সময়টা এখন আর নেই। একেবারেই মিডিয়া ছেড়ে দিয়েছি। নিয়মিত ধর্ম-কর্ম পালনের চেষ্টা করছি। এদিকে বাচ্চারা বড় হচ্ছে, পড়াশোনা শুরু করছে। তাদেরকে ভালোভাবে মানুষ করতে হবে। বাচ্চাদের সময় দেওয়া এখন আমার প্রধান কাজ।’

কয়েক মাস ধরে ঈশিকা নিয়মিত বোরকা ও হিজাব পরছেন। বোঝাই যাচ্ছে, নিজেকে পুরোপুরি ইসলামি পন্থায় পরিচালিত করতে চাইছেন তিনি। ইনস্টাগ্রামে ঈশিকার ১৭ লাখের বেশি অনুসারী রয়েছে। সেখানে তিনি নিয়মিত ছবি-ভিডিও শেয়ার করেন। ইদানিংকালের সব পোস্টেই তাকে হিজাব পরা অবস্থায় দেখা যায়। ভক্তরাও তার এই পরিবর্তন ইতিবাচকভাবে গ্রহণ করেছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের এপ্রিলে লন্ডন প্রবাসী কায়সার খানের সঙ্গে বিয়েবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন ঈশিকা। তারপর দেশ ছেড়ে একে বারে লন্ডনেই স্থায়ীভাবে তার বসবাস শুরু হয়। প্রায় তিন বছরের বেশি সময় ধরে তিনি সেখানে আছেন। বর্তমানে তিনি দুই সন্তানের জননী। বড় ছেলে কেয়ান এবং ছোট ছেলে আমির।