২৩ হাজারের বেশি সেনা নিহত ইউক্রেনে, দাবি রাশিয়ার

সারাবিশ্ব

প্রায় দুই মাস ধরে চলমান রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে এখন পর্যন্ত ইউক্রেনের ২৩ হাজার ৩৬৭ জন সেনা নিহত হয়েছেন বলে দাবি রাশিয়ার। রুশ গণমাধ্যম স্পুতনিক নিউজের এক প্রতিবেদনে জানা গেছে এমন তথ্য।

প্রতিবেদনে দেখা যায়, রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ইগর কোনাশেঙ্কভ চলমান যুদ্ধে ইউক্রেনের সামরিক ক্ষয়ক্ষতির একটি হিসাবও তুলে ধরেছেন।

ইগর কোনাশেঙ্কভ বলেন, যুদ্ধে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী, ন্যাশনাল গার্ড ও বিদেশি ভাড়াটে যোদ্ধারা যে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন, তার নির্ভরযোগ্য ও প্রকৃত হিসাব রয়েছে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে। নিজের দেশের বাসিন্দাদের কাছে এসব তথ্য প্রকাশ করতে ভয় পান ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

এর আগে শুক্রবার (১৫ এপ্রিল) জেলেনস্কি যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে জানিয়েছিলেন, ইউক্রেনে রুশ বাহিনী হামলা শুরু করার পর থেকে এখন পর্যন্ত ইউক্রেনের প্রায় ২ হাজার ৫০০ থেকে ৩ হাজারের মতো সেনা নিহত হয়েছেন।

জেলেনস্কির দেয়া এই পরিসংখ্যানকে মিথ্যা আখ্যায়িত করে কোনাশেঙ্কোভ বলেন, রুশ বাহিনীর অভিযানে শুধু মারিউপোল শহরেই চার হাজারের বেশি ইউক্রেনের সেনা নিহত হয়েছেন।

ইগর কোনাশেঙ্কভ আরও জানিয়েছেন, ইউক্রেনের সেনাবাহিনীকে রসদ সরবরাহে নিয়োজিত একটি উড়োজাহাজ ধ্বংস করা হয়েছে গেলো ২৪ ঘণ্টার হামলায়। ওই উড়োজাহাজে করে পুল পরিমাণ পশ্চিমা অস্ত্র ইউক্রেনের ওডেসা শহরের নিকট নেয়া হচ্ছিল।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এই মুখপাত্রের দেয়া হিসাব অনুযায়ী, ইউক্রেনে রুশ বাহিনীর অভিযানে এখন পর্যন্ত দেশটির ২ হাজার ২৬৯টি ট্যাংক ও অন্যান্য সামরিক যান, ২ হাজার ১৫৮টি বিশেষ সামরিক যান ধ্বংস করা হয়েছে, ৪৬০টি ড্রোন (চালকবিহীন বিমান), ২৪৬টি আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা, ১৩৪টি উড়োজাহাজ, ২৫২টি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণব্যবস্থা, ৯৮৭টি কামান ও মর্টার ধ্বংস করতা হয়েছে।