রাশিয়ায় পৌঁছাতে পারে, ইউক্রেনে এমন রকেট পাঠাবেন না বাইডেন

Slider সারাবিশ্ব

যুক্তরাষ্ট্র রাশিয়ায় পৌঁছাতে পারে- এমন রকেট সিস্টেম ইউক্রেনে পাঠাবে না। দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সোমবার এ তথ্য জানিয়েছেন। এমন এক সময়ে প্রেসিডেন্ট বাইডেন এ মন্তব্য করলেন যখন তার প্রশাসন রাশিয়ার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য কিয়েভে উন্নত দূরপাল্লার রকেট সিস্টেম পাঠানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে খবর বের হয়েছে।

বার্তাসংস্থা রয়টার্সের খবর অনুসারে, সোমবার হোয়াইট হাউসে ফিরে আসার পর বাইডেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা ইউক্রেনের এমন রকেট সিস্টেম পাঠাতে যাচ্ছি না’, যা রাশিয়ায় পৌঁছাতে পারে।

ইউক্রেনীয় কর্মকর্তারা মাল্টিপল লঞ্চ রকেট সিস্টেম বা এমএলআরএস নামে একটি দূরপাল্লার সিস্টেম চেয়েছেন, যা কয়েক শত মাইল দূরে আঘাত হানতে সক্ষম। বাইডেন তার মন্তব্যে কোন সিস্টেমের কথা বলছেন, তা পরিষ্কার ছিল না।

সিএনএন ও ওয়াশিংটন পোস্ট শুক্রবার জানায় যে, বাইডেন প্রশাসন ইউক্রেনে বৃহত্তর সামরিক সহায়তা প্যাকেজের অংশ হিসেবে এমএলআরএস এবং আরেকটি সিস্টেম, হাই মোবিলিটি আর্টিলারি রকেট সিস্টেম (এইচআইএমএআরএস নামে পরিচিত) পাঠানোর দিকে ঝুঁকছে।

কার্যত ইউক্রেনের সরকার যুদ্ধে শক্তিশালী হয়ে ফেরার জন্য তাদেরকে দূরপাল্লার অস্ত্র সরবরাহ করতে পশ্চিমাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। ইউক্রেন যুদ্ধ বর্তমানে চতুর্থ মাসে পড়েছে। মার্কিন কর্মকর্তারা বলেন যে, এ ধরনের অস্ত্র ব্যবস্থা সক্রিয়ভাবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেনীয় বাহিনীকে হাজার হাজার পোর্টেবল স্টিংগার অ্যান্টি-এয়ারক্রাফ্ট এবং জ্যাভলিন অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক ক্ষেপণাস্ত্রের পাশাপাশি উন্নত ড্রোন ও ফিল্ড আর্টিলারি সরবরাহ করেছে।

এ পরিস্থিতিতে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ গত সপ্তাহে ইউক্রেনকে রাশিয়ার ভূখণ্ডে আঘাত হানতে সক্ষম অস্ত্র সরবরাহের বিরুদ্ধে পশ্চিমা শক্তিগুলোকে সতর্ক করে দিয়েছিলেন। তিনি সতর্ক করে বলেন যে, এ ধরনের পদক্ষেপ ‘অগ্রহণযোগ্য বৃদ্ধির দিকে একটি গুরুতর পদক্ষেপ’ হবে। এখানে পরোক্ষভাবে পূর্ব-পশ্চিমের একটি বড় লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিয়েছেন ল্যাভরভ।

ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী যুদ্ধে তার দেশের কী ধরনের অস্ত্র প্রয়োজন, তার ব্যাখ্যা দিয়েছেন। তিনি জানান, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তাদের প্রয়োজন এমএলআরএস (একাধিক লঞ্চ রকেট সিস্টেম) এবং এএসএপি।

এর আগে গত ২৫ মে ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রি কুলেবা বলেন, পূর্ব দোনবাস অঞ্চলের পরিস্থিতি ‘অত্যন্ত খারাপ’। রকেট সিস্টেমগুলো ইউক্রেনীয় বাহিনীকে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেন আক্রমণকারী রুশ দখলদারদের কাছ থেকে দক্ষিণ শহর খেরসনের মতো জায়গাগুলো পুনরুদ্ধারের চেষ্টায় সহায়তা করতে পারে।