দেশী রসুনের দাম প্রতি কেজিতে কমলো ২৫ টাকা

Slider right

এক সপ্তাহের ব্যবধানে দিনাজপুরের কমেছে রসুনের দাম। রসুনের দাম খুচরা বাজারে কমে আসায় ক্রেতা সাধারণের মাঝে কিছুটা স্বস্তি ফিরে এসেছে। ফুলবাড়ী পৌরশহরের সবজির খুচরা ও পাইকারি বাজারের ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া যায়।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, দেশি রসুনের দাম কেজিতে ২০ থেকে ২৫ টাকা কমেছে। গত সপ্তাহে যে রসুন কেজিপ্রতি ৮৫ থেকে ৯০ টাকায় বিক্রি হয়েছে, সেই রসুন এখন ৬৫ থেকে ৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

ব্যবসায়ীদের দাবি, ভারত থেকে রসুন আমদানি হওয়ায় পাইকারি ও খুচরা বাজারে দাম কমেছে। তবে ভারতীয় রসুন আমদানি স্বাভাবিক থাকলে রসুনের দাম আরও কমে যাবে। এর পাশাপাশি দেশি রসুনের দামও অনেক কমে আসবে।

পৌর বাজারের খুচরা সবজি ব্যবসায়ী সামসুল ইসলাম বলেন, হিলি বাজার থেকে ভারতীয় আমদানিকৃত রসুন পাইকারি দরে আমাদের বাজারে আসার কারণে দাম কমেছে। দেখা যাচ্ছে প্রতি কেজি রসুন ২০ থেকে ২৫ টাকা কমেছে। তবে ক্রেতা মিলছে না। আগে দিনে অন্তত ২ বস্তা রসুন বিক্রি হয়ে যেতো এখন ১ বস্তাও বিক্রি হচ্ছে না। তবে ভারতীয় আমদানিকৃত রসুন আসতে শুরু করলে রসুনের দাম আরও কমে আসবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

স্থানীয় পেঁয়াজ-রসুনের পাইকারি ব্যবসায়ী আমজাদ হোসেন বলেন, ভারতীয় রসুন বাজারে না থাকলে দেশি রসুনের ওপর চাপ বাড়ায়, দাম বেড়ে যায়। তবে ভারতীয় রসুন আমদানি স্বাভাবিক থাকলে রসুনের দাম ৩০ টাকা কেজিতে নেমে আসবে। এর পাশাপাশি দেশি রসুনের দামও অনেক কমে আসবে।