বিল পরিশোধ তবুও সংযোগ বিচ্ছিন্ন করল পল্লী বিদ্যুৎ অফিস

Slider right সারাবাংলা

মো. মনিরুজ্জামান, ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা: কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ থাকার পরেও এক গ্রাহকের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে কুড়িগ্রাম-লালমনিরহাট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ভূরুঙ্গামারী জোনাল অফিস। বিল পরিশোধ হয়ে থাকলে সংযোগ সচল করে দেওয়া হবে ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজারের (ডিজিএম) এমন বক্তব্যের পর একদিন অতিবাহিত হলেও বিচ্ছিন্ন সংযোগটি সচল হয়নি। এতে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা গ্রাহক ও তার বৃদ্ধ মায়ের ভোগান্তিতে বেড়েছে।

জানা গেছে, ভূরুঙ্গামারী উপজেলার তিলাই ইউনিয়নের পশ্চিম ছাট গোপালপুর গ্রামের বাসিন্দা আনিস আলী গত বুধবার ৭ জুন তার আবাসিক বিদ্যুৎ সংযোগের বিল ভূরুঙ্গামারী জোনাল অফিসে গিয়ে পরিশোধ করেন। বিল পরিশোধ করার পরেও বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন গত ১১ জুন শনিবার তার আবাসিক সংযোগটি বিচ্ছিন্ন করে দেয়। গত রোববার ১২ জুন আনিস আলী তার পরিশোধিত বিদ্যুৎ বিলের কপি ভূরুঙ্গামারী জোনাল অফিসে দেখালেও বিদ্যুৎ অফিস সোমবার ১৩ জুন বিকেল পর্যন্ত তার বিদ্যুৎ সংযোগ সচল করেনি।

আনিস আলী বলেন, বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ থাকার পরেও স্থানীয় দালালদের যোগসাজশে বিদ্যুৎ অফিস আমার বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে। বাড়িতে অসুস্থ বৃদ্ধ মা থাকেন। অন্ধকারে বৃদ্ধ মানুষটি কিভাবে থাকবেন? পরিশোধিত বিদ্যুৎ বিলের কপি নিয়ে রোববার অফিসে গিয়েছিলাম। তারা বিলের ফটো কপি জমা রেখেছেন। সোমবার বিকেল পর্যন্ত তারা আমার বিদ্যুৎ সংযোগ সচল করে দেননি। পল্লী বিদ্যুতের এই গোঁয়ার্তুমি দ্রুত বন্ধ করা প্রয়োজন। রাতেই বিদ্যুৎ সংযোগ সচল করার দাবি জানান তিনি।

এই বিষয়ে জানতে রোববার কুড়িগ্রাম-লালমনিরহাট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ভূরুঙ্গামারী জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) কাওসার আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, আনিস আলীর বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ হয়ে থাকলে তার সংযোগ সচল করে দেওয়া হবে।