২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষ : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিলেন ৫৫ বছর বয়সী বেলায়েত

Slider right শিক্ষা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) পড়া নিয়ে এবার ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছেন ৫৫ বয়সী বেলায়েত শেখ। বয়স, নির্মম বাস্তবতা, সন্তানদের অসফলতার পর নিজেই নেমেছেন ঢাবিতে পড়ার স্বপ্ন পূরণে। শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এফ এম মুজিবুর রহমান গণিত ভবনের ৮ম তলার ৮০২ নম্বর কক্ষে পরীক্ষা দিয়েছেন বেলায়েত শেখ।

পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশের আগে বেলায়েত এক গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়া আমার অনেক দিনের লালিত স্বপ্ন। নিজে পারিনি এবং সন্তানদের দিয়েও পারিনি। তাই এবার আরেকবার চেষ্টায় নামলাম, আল্লাহ ভরসা। ঢাবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে পড়া তার স্বপ্ন বলে জানান বেলায়েত।

কেন্দ্রের বাইরে অবস্থান করেছেন তার ছোট ছেলে সাদেক শেখ জীবন। তিনি জানান, আমার ভাইয়া, আপুকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করানোর স্বপ্ন ছিল বাবার। কিন্তু তারা তা পারেননি। তাই আক্ষেপ গোছাতে বাবা পরীক্ষা দিচ্ছেন। আমি বাবার সঙ্গে এসেছি, বাবা পরীক্ষার হলে প্রবেশ করেছেন।

গণিত ভবনের দায়িত্বরত নিরাপত্তাকর্মী জাবেদ হোসেন বলেন, সবার আগে আমরা বেলায়েত শেখকে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দিয়েছি। এই বয়সে কেউ পরীক্ষা দিতে এসেছে প্রথম দেখলাম।

বেলায়েত ১৯৮৩ সালে প্রথমবার মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিলেও টাকার অভাবে সেবার নিবন্ধন করতে পারেননি। ১৯৮৮ সালে তিনি আবারও এসএসসি পরীক্ষা দেওয়ার চেষ্টা করেন, কিন্তু সে বছর বন্যার কারণে পরীক্ষা দিতে পারেননি। কর্মজীবন শুরু করার পর বেলায়েত আর পড়ালেখা না করার সিদ্ধান্ত নেন। একসময় সন্তানদের মাধ্যমে স্বপ্ন পূরণের চেষ্টা করেন। কিন্তু তাতেও ব্যর্থ হন। তার মেয়ে রাজউক উত্তরা মডেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেলেও কলেজে যেতে আগ্রহী ছিলেন না। এমনকি তার বড় ছেলেও পড়ালেখা করতে আগ্রহী নন।

বেলায়েতের বয়স এখন ৫৫ হলেও ভেতরটা একদমই তরুণ। এক সময় স্বপ্ন ছিল নিজে বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষা নেবেন। তবে তা আর হয়ে ওঠেনি। তিন সন্তান দিয়েও পূরণ হয়নি সেই লালিত স্বপ্ন। তাই শেষমেষ এ বয়সে আবারও শুরু করেন লেখাপড়া। ২০১৯ সালে এসএসসি এবং ২০২১ সালে এইচএসসি পাশ করেন বেলায়েত।

পেশায় সংবাদকর্মী বেলায়েত চান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে পড়তে। লেখালেখির চর্চার পাশাপাশি করতে চান শিক্ষকতা। শিক্ষানুরাগী বেলায়েতের অব্যাহত প্রচেষ্টায় মুগ্ধ তার পরিবার-স্বজনরা। স্বপ্ন পূরণে কঠোর পরিশ্রমের পাশাপাশি সাহস আর দৃঢ় মানসিকতাকে গুরুত্বপূর্ণ মনে করেন বেলায়েত শেখ।