ভুরুঙ্গামারীতে পরকীয়ার দায়ে পল্লীচিকিৎসককে গণধোলাই

সারাবাংলা

মো. মনিরুজ্জামান, ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা: কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে পরকীয়ার দায়ে এক পল্লীচিকিৎসককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে দিয়েছে উত্তেজিত জনতা। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার শিলখুড়ি ইউনিয়নের উত্তর ছাটগোপালপুর পাগলারহাট বাজারে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানাযায়, উত্তর ছাটগোপালপুর গ্রামের মৃত ডাঃ সিরাজুল ইসলামের পুত্র জিন্নাহ দীর্ঘদিন থেকে চিকিৎসার আড়ালে অনেক মহিলা রোগীদের সাথে পরকীয়া প্রেম করে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় একই এলাকার জনৈক ব‍্যক্তির স্ত্রীর সাথে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। বিষয়টি তার স্বামীর বাড়ির লোকজন জানার পর কয়েক দফা গোপনে সালিশ করা হলেও তাদের সম্পর্ক অব্যাহত থাকে। তাদের দাম্পত্য জীবন প্রায় ১২/১৩ বছর এবং দুটি সন্তান রয়েছে। এদিকে স্বামীর কথায় কর্নপাত না করে পল্লীচিকিৎসক জিন্নাহর কথামত চলার কারনে ওই নারীকে শাসন করায় স্বামীর সংসার করবে না মর্মে বাবার বাড়িতে অবস্থান নেয় এবং জিন্নাহর সাথে নিয়মিত যোগাযোগ অব্যাহত রাখে।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) সন্ধ্যায় ডাঃ জিন্নাহ মোবাইলে ওই নারীর সাথে কথা বলার সময় জিন্নাহকে পাগলারহাট বাজার বটতলায় আটক করে বাজারের লোকজন এবং যারা বিষয়টি জানে তারা গণধোলাই দেয়। এ সময় বাজারের কিছু দোকান্দার তাকে হেফাজতে নেয়। এদিকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে উত্তেজিত লোকজন লম্পট জিন্নাহর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করে বিভিন্ন স্লোগান দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ ডাঃ জিন্নাহকে নিরাপদ হেফাজতে থানায় নিয়ে আসে।

ভূরুঙ্গামারী থানার ওসি আলনগীর হোসেন জানান, পুলিশ কর্তৃক আটক নয় তাকে নিরাপদ হেফাজতে থানায় আনা হয়েছে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উভয় পক্ষের মধ্যে বিষয়টির একটি সুষ্ঠু সমাধানের প্রক্রিয়া চলছে।