তাইওয়ানকে যেকোনোভাবে নিজেদের অংশ করার ঘোষণা চীনের

Slider

যুক্তরাষ্ট্রের হাউজ স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি তাইওয়ান সফরে আসার পর তাইওয়ানকে ঘিরে সামরিক মহড়া চালায় চীন। বুধবার নিজেদের সামরিক মহড়া শেষ করার ঘোষণা দেয় চীন। এরপর একটি ‘সাদা কাগজ রিপোর্ট’ প্রকাশ করে। ১৯৯৩ এবং ২০০০ সালে এমন সাদা কাগজ রিপোর্ট দিয়েছিল চীন।

এবারের রিপোর্টের শিরোনাম দেওয়া হয়েছে ‘তাইওয়ান প্রশ্ন এবং চীনের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার নতুন যুগ।’

নিজেদের সর্বশেষ সাদা কাগজে চীন জানিয়েছে, তাইওয়ানকে যেকোনোভাবে চীনের অংশ করা বা যুক্ত করা হবে।

চীনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, প্রথমে তাইওয়ানকে শান্তিপূর্ণভাবে চীনের অংশ করার চেষ্টা করা হবে। কিন্তু যদি এটি না হয় তাহলে সামরিক অভিযান চালানো হবে।

ঠিক কখন বা কোন সময়ে তাইওয়ানকে চীনের সঙ্গে যুক্ত করা হবে সে বিষয়টি জানায়নি চীন।

তবে বলা হয়েছে, এই সমস্যা এক প্রজন্ম থেকে আরেক প্রজন্মে যেতে দেওয়া হবে না। তার আগেই সমাধান করা হবে।

এদিকে ১৯৯৩ এবং ২০০০ সালে যখন চীন সাদা কাগজ রিপোর্ট প্রকাশ করেছিল তখন তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, তাইওয়ান চীনের সঙ্গে যুক্ত হলে সেখানে চীনের কোনো সেনা পাঠানো হবে না। তাছাড়া চীনের কোনো প্রশাসকও তাইওয়ানে যাবে না। এর মাধ্যমে তাইওয়ানকে শায়ত্বশাসন দেওয়ার ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছিল।

কিন্তু নতুন রিপোর্টে এ বিষয়টি উল্লেখ করা হয়নি।

তাছাড়া আগের রিপোর্টে বলা হয়েছিল, যদি তাইওয়ান এক-চীন নীতি স্বীকার করে এবং স্বাধীনতা না চায় তাহলে যে কোনো বিষয়ে আলোচনা করা হবে। নতুন রিপোর্টে এটিও বলেনি তারা।

এদিকে ১৯৪৯ সাল থেকেই চীনের সামরিক অভিযানের হুমরিক মুখে আছে তাইওয়ান। ওই বছর সমাজতন্ত্র বিপ্লবী মাও সে-তুংয়ের বাহিনীর কাছে পরাজিত হয়ে তাইওয়ানে আশ্রয় নেয় চীনের গণতান্ত্রিক সরকার। সেখানে নতুন করে শাসন প্রতিষ্ঠা করে চীন থেকে পালিয়ে যাওয়া গণতন্ত্রপন্থী সরকার।এরপর চীন দাবি করে তাইওয়ান তাদের এবং এই অঞ্চলটি দখল করার হুমকি দেয়। সূত্র: রয়টার্স