আমাকে আবারও গৃহবন্দি করা হয়েছে: কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা

Slider right সারাবিশ্ব

ভারতের জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতিকে আবারও গৃহবন্দি করা হয়েছে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন। রোববার এক টুইটবার্তায় তিনি লিখেছেন, আজ নিহত কাশ্মীরি পণ্ডিত সুনীল কুমার ভাটের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছিলাম। কিন্তু আমাকে যেতে দেওয়া হয়নি। খবর ইন্ডিয়া টুডের।

গত ১৬ আগস্ট সোপিয়ানের ছোটপোরা এলাকায় গুলি চালিয়ে হত্যা করা হয় কাশ্মীরি পণ্ডিত সুনীল কুমার ভাটকে। জঙ্গিগোষ্ঠী আলবদর ওই হত্যার দায় স্বীকার করেছে বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে।

মেহবুবা মুফতি হলেন কাশ্মীরের প্রথম নারী মুখ্যমন্ত্রী। ৬২ বছর বয়সি এ নেতা দেশটির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মুফতি মোহাম্মদ সাঈদের মেয়ে। মোহাম্মদ সাঈদ ২০১৬ সালে মারা যান।

গৃহবন্দি করা হয়েছে এ তথ্য জানানোর পাশাপাশি মেহবুবা তার বাড়ির সামনে আধা সেনা মোতায়েনের ছবিও পোস্ট করেছেন।

তার অভিযোগ, কেন্দ্রীয় সরকারের ভুলের মাসুল দিতে হচ্ছে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের। নিরাপত্তার দোহাই দিয়ে প্রশাসন আমাদের আটকে দিচ্ছে। কিন্তু নিজেরা প্রতিটি এলাকা চষে বেড়াচ্ছে।

তিন মাস আগেও একবার মেহবুবাকে আটকানো হয়। ১৩ মে বাদগাম যাওয়ার সময় প্রশাসন আটক করে তাকে। সেই সময় তিনি টার্গেট কিলিংয়ে নিহত কাশ্মীরি পণ্ডিত রাহুল ভাটের আত্মীয়দের সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছিলেন।

এর আগে ২০১৯ সালের ৫ আগস্ট কাশ্মীরের বিশেষ সাংবিধানিক মর্যাদা প্রত্যাহারের সময় টানা কয়েক মাস তিন সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ, তার ছেলে ওমর এবং পিডিপি নেত্রী মেহবুবাকে গৃহবন্দি করে রেখেছিল কেন্দ্রীয় সরকার।