ন্যাটোকে সতর্ক করল ইউরোপের এই দেশ

সারাবিশ্ব

মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ন্যাটোকে সতর্ক করেছে ইউরোপের দেশ সার্বিয়া। বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও এপি সোমবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। এ ব্যাপারে সার্বিয়ার প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার ভুসিক বলেন, কসোভোতে ন্যাটোর শান্তিরক্ষা বাহিনীর সার্ব সংখ্যালঘুদের সুরক্ষায় ‘কাজ’ করা উচিত। তা না হলে বেলগ্রেড একতরফাভাবে সেই কাজ করবে।

বিচ্ছিন্ন প্রদেশে সার্ব সংখ্যালঘুদের সুরক্ষায় ‘কাজ’ করার জন্য ন্যাটো শান্তিরক্ষীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে ভুসিক বলেন, কসভোয় কর্মরত সার্ব সংখ্যালঘুরা তাদের ওপর ‘নিপীড়ন’ বন্ধ করার জন্য একটি চুক্তিতে না পৌঁছালে চাকরি ছেড়ে দেবে বলে সতর্ক করেছেন ভুসিক।

রাশিয়া বেলগ্রেডকে ওই অঞ্চলে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করতে উৎসাহিত করার চেষ্টা করছে বলে আশঙ্কা করছে পশ্চিমারা।

ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যস্থতায় চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে সার্বিয়ান এবং কসোভো নেতাদের মধ্যে রাজনৈতিক আলোচনা ব্যর্থ হওয়ার পর ভুসিক এই মন্তব্য করেন।

দমনমূলক বেলগ্রেড শাসনের বিরুদ্ধে গেরিলা বিদ্রোহের প্রায় এক দশক পর ২০০৮ সালে কসোভো সার্বিয়ার কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভ করে।

সার্বিয়া এখনো আইনত কসোভোকে তার ভূখণ্ডের অবিচ্ছেদ্য অংশ বলে মনে করে। দেশটি কসোভোতে উত্তেজনা ও সংঘর্ষ জাগিয়ে তোলার কথা অস্বীকার করে এবং প্রিস্টিনার বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু সার্বদের অধিকার পদদলিত করার অভিযোগ তোলে।

ভুসিক বলেন, সার্বিয়া পরিস্থিতির যেকোনো অবনতি এড়াতে চেয়েছিল, তবে এটি বোঝা গুরুত্বপূর্ণ যে, ‘নতুন প্রজন্মের যুবকরা’ কসোভোকে সার্বিয়ান অঞ্চল হিসেবে দেখে এবং তারা আর ‘সন্ত্রাস সহ্য করবে না’।

সম্প্রতি কসভো কর্তৃপক্ষ দেশটির স্থানীয় সার্বদের গাড়িতে সার্বিয়ান থেকে কসভোর নম্বর প্লেট বদলতে বলায় নতুন করে দুইদেশের মধ্যে উত্তেজনা শুরু হয়।