সস্তা ট্যাবলেটকে যেভাবে ‘প্রাণঘাতী অস্ত্রে’ বানাচ্ছে ইউক্রেন

Slider right সারাবিশ্ব

রাশিয়া আক্রমণ করার কয়েক বছর আগে ওলেক্সি শেভচেঙ্কো নামে এক ব্যক্তি সবচেয়ে মারাত্মক এবং সস্তা অস্ত্রগুলোর একটি তৈরিতে ইউক্রেনকে সহায়তা করেছিলেন। ওলেক্সি শেভচেঙ্কো সেই প্রতিবাদকারীদের মধ্যে একজন যারা ২০১৪ সালে কিয়েভে মাসব্যাপী সমাবেশ করে রুশপন্থী রাষ্ট্রপতি ভিক্টর ইয়ানুকোভিচকে অপসারণ করেছিলেন।

আর এটির প্রতিশোধের জন্য মস্কো ক্রিমিয়াকে সংযুক্ত করে এবং ইউক্রেনের দক্ষিণ-পূর্বে একটি বিচ্ছিন্নতাবাদী যুদ্ধ শুরু করে। এ সময় শেভচেঙ্কো সমমনা কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে আর্মি এসওএস নামে একটি বেসরকারী সংস্থা চালু করেন।

গোষ্ঠীটি বিক্ষোভকারীদের জন্য ফ্ল্যাক জ্যাকেট এবং অন্যান্য সামরিক গিয়ার সংগ্রহের জন্য অর্থ সংগ্রহ করেছিল।

শেভচেঙ্কো তাদের কথা স্মরণ করে বলেন, তারা সে সময় প্রায় একটা কথাই বলতেন, আর সেটা হলো- বন্ধুরা, আমাদের মানচিত্র দিন, আমাদের মানচিত্র দরকার, আমাদের কাছে শুধু ১৯৮০ সালের সোভিয়েতের একটা ম্যাপ আছে। এই ম্যাপ অনুযায়ী যেখানে যা থাকার কথা সেখানে তা নেই।

সে সময় হাজার হাজার পৃষ্ঠা ছাপানোর পরিবর্তে আর্মি এসওএস একটি প্রযুক্তিগত সমাধানের বিষয়ে চিন্তা করে।

তখন তারা কিয়েভের একদল সফটওয়্যার ডেভলোপারদের ডাকেন এবং তাদেরকে ট্যাবলেট এবং স্মার্টফোনে স্যাটেলাইট মানচিত্র এবং ইউক্রেনের সামরিক ডেটা ইনস্টল করতে বলেন।

সে সময় আর্মি এসওএস এবং ডেভেলপাররা যা নিয়ে এসেছিলেন তা পুরো সিস্টেমকে বদলে দিয়েছিল।

তারা ক্রোপিভা নেটল নামে একটি সফটওয়্যার বানায়। সফটওয়্যারটি হাই-টেক সরঞ্জাম এবং অস্ত্রশস্ত্রের একটি সিরিজের অংশ যা ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীকে একটি নিরাসক্ত নিম্নবিত্ত থেকে প্রতিরোধের একটি গুরুতর শক্তিতে রূপান্তর করতে সাহায্য করে।

ওয়াশিংটন ডিসির একটি থিঙ্ক ট্যাঙ্ক জেমসটাউন ফাউন্ডেশনের রাশিয়া ভিত্তিক প্রতিরক্ষা বিশ্লেষক পাভেল লুজিন আল জাজিরাকে বলেছেন, ক্রোপিভা’ ব্যক্তিগত উদ্যোগ এবং সামরিক ক্ষেত্রে বেসামরিক ব্যবস্থার কার্যকর ব্যবহারের একটি উদাহরণ।

সফটওয়্যারটি যে কোনো অ্যান্ড্রয়েড-ভিত্তিক ট্যাবলেটে কাজ করত। আর এ জন্য তখন খরচ করা হতো প্রায় দেড়শ ডলারের মতো। ট্যাবলেটটি তার ব্যবহারকারী, একটি ড্রোন বা রাডার থেকে আর্টিলারি ফায়ার সংশোধন করার জন্য স্থানাঙ্ক আদান-প্রদান করতে পারত।

এটি ইউক্রেনীয় সামরিক বাহিনীতে ব্যবহৃত সব ধরনের আর্টিলারির লক্ষ্য এবং সরাসরি আঘাতগুলোর দূরত্ব গণনা করতে পারত।

ট্যাবলেটটি আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য নিয়ে বাতাসের গতি-দিক, তাপমাত্রা এবং আর্দ্রতা মেপে প্রতিটি আঘাতকে প্রভাবিত করতে পারত।

ট্যাবলেটটি মুহুর্তের মধ্যে সমস্ত গণনার কাজ করতে পারতো যা কি না গুরুত্বপূর্ণ সময়ে মিত্র পক্ষের জীবন বাঁচাতে এবং শত্রুকে ধ্বংস করতে খুব কার্যকরী ভূমিকা রাখত।

পরে আর্মি এসওএস এবং ডেভেলপাররা ২০১৮ সালে ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনীকে বিনামূল্যে সফটওয়্যার কোডটি হস্তান্তর করেছিল। সূত্র: আলজাজিরা