৫ বছরেও শেষ হয়নি সোনাহাট ও গোলের হাট রাস্তা মেরামতের কাজ

Slider right সারাবাংলা

মো. মনিরুজ্জামান, ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা: কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে সোনাহাট ক্যাম্পের মোড় থেকে গোলের হাট পর্যন্ত প্রায় ১০ কিলোমিটার রাস্তা মেরামত কাজ ৫ বছরেও সমাপ্ত হয়নি। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে এই রাস্তা দিয়ে চলাচলকারি ভূরুঙ্গামারী ও কচাকাটা থানার হাজার হাজার মানুষ।তারপরেও কাজটি বাস্তবায়নে ব্যাপক অনিয়ম ও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে।

জানাগেছে, ভূরুঙ্গামারীর সোনাহাট ক্যাম্পের মোড় থেকে গোলের হাট পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার রাস্তা মেরামতের জন্য প্রায় ৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। সিএলপি প্রকল্পের আওতায় সড়ক ও জনপথ বিভাগ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান হাসান টেকনো বিল্ডার্স কাজটি পেলেও কাজটি বাস্তবায়ন করছে আমিনুল হক প্রাইভেট লিঃ নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটি ২০১৮ সালে কাজ শুরু করলেও এখন পর্যন্ত তা সমাপ্ত হয়নি।

এদিকে কাজটি বাস্তবায়নে ব্যাপক অনিয়ম ও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। রাস্তা মেরামতের কাজে বালুর পরিবর্তে মাটি এবং আনুপাতিক হারে পাথরের পরিমাণ কম দেয়া হচ্ছে। শুধু তাইনয়, রাস্তার দু’পাশে সোল্ডারে মাটি দেয়ার কথা থাকলেও তা দেয়া হয়নি।

এলাকাবাসী তালেব, আজিবর ও মোনব্বের জানান,কাজের মান দেখার জন্য প্রকৌশল বিভাগের লোকজন থাকার কথা থাকলেও তারা নিয়মিত আসেননা। ফলে ঠিকাদারের লোকজন নিজেদের খেয়াল খুশি মত কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, এই রাস্তাটি দীর্ঘদিন থেকে এভাবে ধীর গতিতে কাজ চলছে। এতে বর্ষাকালে কাঁদা মাটি আর শীতকালে ধূলো বালিতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার সাজ্জাদ হোসেন জানান, বৃষ্টির কারনে রাস্তায় কাদা হয়েছে। সেজন্য মনে হচ্ছে মাটি দেয়া হয়েছে।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের এসও জহুরুল হক জানান, যেখানে যেখানে কাজের মান খারাপ হয়েছে আমরা পুনরায় তা ঠিক করে নিবো। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের গাফলতির কারনে বিলম্ব হয়েছে বলে তিনি জানান।