আমার কোনো অনুশোচনা নেই: পুতিন

Slider right সারাবিশ্ব

কাজাখস্তানের রাজধানী আস্তানায় শুক্রবার একটি সম্মেলনে যোগ দেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। সম্মেলন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন রুশ প্রেসিডেন্ট। পুতিনকে জিজ্ঞেস করা হয় ইউক্রেনে হামলা করায় এবং বর্তমান পরিস্থিতির জন্য তিনি অনুতপ্ত কিনা এবং তার মধ্যে কোনো অনুশোচনা কাজ করে কিনা? এমন প্রশ্নের জবাবে পুতিন বলেন, ‘না’। ইউক্রেনকে ধ্বংস করা রাশিয়ার লক্ষ্য ছিল না।

তাছাড়া ইউক্রেনে রাশিয়ার সেনা জড়ো করার বিষয়টি নিয়েও কথা বলেন পুতিন। তিনি বলেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী ৩ লাখ সেনা জড়ো করার যে ঘোষণা দিয়েছিলেন সেটি আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তিন লাখ সেনা জড়ো করার যে ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল এরমধ্যে ২ লাখ ২২ হাজার সেনা জড়ো সম্পন্ন হয়েছে। এরমধ্যে ৩৩ হাজার ইতিমধ্যে সামরিক ইউনিটগুলোতে গেছে। আর ১৬ হাজার ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযানে অংশ নিতে গেছে।

ইউক্রেনে আরও কঠোর হামলা করা হবে কিনা? এমন প্রশ্নের জবাবে প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেছেন, এখন বড় হামলা করার কোনো প্রয়োজন নেই। এখন আরও অন্য কাজ আছে এবং পরবর্তীতে এটি পরিস্কার করা হবে। আমরা ইউক্রেনকে ধ্বংস করার কর্মপরিকল্পনা ঠিক করিনি।

তাছাড়া এই যুদ্ধে ন্যাটের যোগ দেওয়ার বিষয়টি নিয়েও কথা বলেছেন পুতিন। তিনি বলেছেন, রাশিয়ার সঙ্গে ন্যাটোর সরাসরি দ্বন্দ্ব ‘বিশ্বব্যাপী বিপর্যয়’ ডেকে আনবে। আমি মনে করি যারা এগুলো বলছে তারা যথেষ্ট বুদ্ধিমান এমন কোনো পদক্ষেপ না নিতে।

তাছাড়া জার্মানির ব্যাপারেও কথা বলেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেছেন, জার্মানি নিজেদের জাতীয় স্বার্থ না দেখে ন্যাটোকে প্রাধান্য দিচ্ছে।

তিনি বলেছেন, জার্মানি চাইলে নর্ড স্ট্রিম-২ পাইপ লাইনের অক্ষত অংশ দিয়ে গ্যাস পাঠাতে পারে রাশিয়া। কিন্তু এমন কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া রাশিয়ার কাজ না।

তাছাড়া শস্যচুক্তি ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে দেখা করার বিষয়েও কথা বলেছেন পুতিন।

তিনি বলেছেন, ইউক্রেনের শস্য বহিঃবিশ্বে যাওয়ার জন্য যে করিডোর তৈরি করা হয়েছে সেটি যদি ‘সন্ত্রাসবাদের’ কাজে ব্যবহার করা হয় তাহলে সেটি বন্ধ করে দেওয়া উচিত।

অন্যদিকে জো বাইডেনের সঙ্গে বৈঠক করার ব্যাপারে পুতিন বলেছেন, বাইডেনের সঙ্গে কথা বলার কোনো প্রয়োজন নেই।

তিনি আরও জানিয়েছেন, আগামী মাসে ইন্দোনেশিয়ার বালিতে হতে যাওয়া জি-২০ সম্মেলনে যোগ দেবেন কিনা সেটি এখনো ঠিক করেননি তিনি। সূত্র: আল জাজিরা, দ্য গার্ডিয়ান