খেরসন পুনরুদ্ধারে লাগাতার হামলা চালাচ্ছে ইউক্রেনীয় সেনারা

Slider right সারাবিশ্ব

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের একপর্যায়ে মস্কোর কাছে গুরুত্বপূর্ণ খেরসন শহর হারিয়ে ফেলে ইউক্রেনীয় সেনারা। তবে শহর হারিয়ে থেমে থাকেনি তারা। খেরসন পুনরুদ্ধারে মরিয়া হয়ে লড়াই চালাচ্ছে ইউক্রেনের সেনারা। ফলে পরিস্থিতি দিনকে দিন জটিল হয়ে উঠছে। ইউক্রেনে নিযুক্ত রুশ বাহিনীর কমান্ডার সের্গেই সুরোভিকিন বলছেন, ইউক্রেনীয় সেনারা হিমার্স ব্যবহার করে খেরসন শহরের অবকাঠামো লক্ষ্য করে আঘাত হানছে। এর ফলে খেরসনের পরিস্থিতি ক্রমেই গুরুতর হচ্ছে। সেখানকার বাসিন্দাদের দ্রুত সরিয়ে নিতে হবে। খবর বিবিসির।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের নির্দেশে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরুর প্রথম দিকে খেরসনের নিয়ন্ত্রণ হারায় কিয়েভ। তবে সপ্তাখানেক ধরে পাল্টা হামলা চালিয়ে খেরসনের বেশ কয়েকটি এলাকা পুনরুদ্ধার করেছে। এবং লড়াই অব্যাহত রেখেছে।

এমন সংকটে রুশ বাহিনীর কমান্ডার সুরোভিকিন আরও বলেন, সার্বিকভাবে এ অঞ্চলের সামরিক অভিযানকে জটিল এবং উত্তেজনাপূর্ণ হিসেবে বলা যেতে পারে। তবে সাধারণ মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে নিতে চেষ্টা করবে রাশিয়ান বাহিনী। খেরসন রাশিয়ার দখলকৃত ইউক্রেনের একমাত্র আঞ্চলিক রাজধানী। ডনেস্ক, লুহানস্ক, জাপোরিজ্জিয়ার পাশাপাশি খেরসন অঞ্চলকেও সম্প্রতি রাশিয়ার সঙ্গে অন্তর্ভুক্তির ঘোষণা দেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তার এ ঘোষণাকে প্রত্যাখ্যান করেছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

জেনারেল সুরোভিকিন বলেন, ইউক্রেনের রকেট হামলা খেরসনের আন্তোনিভস্কি ব্রিজ এবং কাখোভকা জলবিদ্যুৎ বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। ফলে শহরের মূলে কেন্দ্রে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। সেখানে খাদ্য সরবরাহসহ প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো পৌঁছে দেওয়া যাচ্ছে না।