ওয়ালটনের সঙ্গে বাণিজ্য সম্পর্ক স্থাপনে আগ্রহী দক্ষিণ সুদান

অর্থ ও বাণিজ্য

বাংলাদেশী ইলেকট্রনিক্স জায়ান্ট ওয়ালটনের সঙ্গে বাণিজ্য সম্পর্ক স্থাপনে আগ্রহ দেখিয়েছেন বাংলাদেশে সফররত দক্ষিণ সুদানের দুই মন্ত্রীসহ ৭ সদস্যের প্রতিনিধিদল। বৃহস্পতিবার (১০ ফেব্রুয়ারি, ২০২২) গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসি’র কারখানা পরিদর্শনে এসে দক্ষিণ সুদানের প্রতিনিধিদল এই আগ্রহের কথা জানায়। সাত সদস্যের ওই প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন দেশটির পররাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বিষয়ক উপমন্ত্রী দেং দাউ দেং মালেক।
এ সময় তাঁর সফরসঙ্গী ছিলেন দ. সুদানের প্রতিরক্ষা উপমন্ত্রী জেনারেল চোল থন বালোক, ট্রেড অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি’র মহাপরিচালক লিও ওকাহি লোলে, জয়েন্ট বর্ডার ভেরিফিকেশন অ্যান্ড মনিটরিং মেকানিজমের মেজর জেনারেল মাউ মানাসে মালেক, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা মায়োম আলিয়ার, পররাষ্ট্র উপমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারি ডিং ডেং এবং প্রতিরক্ষা উপমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারি মনিলাক মনিজক রিয়াক।

অতিথিদের সঙ্গে আরো উপস্থিত ছিলেন ইথিওপিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূত মো. নজরুল ইসলাম, আফ্রিকায় নিযুক্ত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহা-পরিচালক মো. তরিকুল ইসলাম ও অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি রারেয়া বেগম, বিগ্রেডিয়ার জেনারেল আব্দুল আলিম তরফদার ও মো. শামীম কামাল, লে. ক. মো. শাহরিয়ার মোর্শেদ প্রমূখ। প্রতিনিধিদলের প্রধান দেং দাউ দেং মালেক বলেন, বিশ্ব বাজারে ওয়ালটন খুব সুপরিচিত।

তাই ওয়ালটনের সঙ্গে ব্যবসায়িক ও বাণিজ্য সম্ভাবনার ক্ষেত্রগুলো খুঁজে বের করার লক্ষ্যে কারখানা পরিদর্শনের এই উদ্যোগ। পূর্ব-মধ্য আফ্রিকার দেশগুলোতে যেমন- ইথিওপিয়া, উগান্ডা, কঙ্গো, সুদান ও মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রের বাজারে প্রবেশদ্বার হিসেবে কাজ করবে দক্ষিণ সুদান। সেজন্য ওয়ালটনের মত বিশ্বের কয়েকটি বড় বড় প্রতিষ্ঠানকে দক্ষিণ সুদানের সঙ্গে ব্যবসায়িক ও বাণিজ্য সম্পর্ক স্থাপনের আহবান জানাচ্ছি। এক্ষেত্রে তাদেরকে প্রয়োজনীয় সব সহযোগিতা প্রদান করা হবে।
ইথিওপিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূত মো. নজরুল ইসলাম বলেন, দক্ষিণ সুদানের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক জোরদারকরণে কাজ করছে বাংলাদেশ। সেজন্য বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় বাণিজ্যিক ক্ষেত্রগুলো খুঁজে বেরা করতে দ. সুদানের প্রতিনিধিদলকে সহযোগিতা করা হচ্ছে। এরই প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের ফ্ল্যাগশিপ ইন্ডাস্ট্রি ওয়ালটন কারখানায় এই পরিদর্শন।
বৃহস্পতিবার বিকালে অতিথিরা কারখানা প্রাঙ্গণে পৌঁছলে তাদেরকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর মো. আলমগীর আলম সরকার, ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজের ডিএমডি লিয়াকত আলী, ওয়ালটন এইচআর বিভাগের প্রধান কর্নেল (অবসরপ্রাপ্ত) এসএম শাহাদাত আলম।অতিথিরা প্রথমে ওয়ালটনের বিশাল কর্মযজ্ঞের উপর নির্মিত ভিডিও ডক্যুমেন্টারি উপভোগ করেন।
এরপর ওয়ালটনের সুসজ্জিত প্রোডাক্ট ডিসপ্লে সেন্টার ঘুরে দেখেন। পরে অতিথিরা ওয়ালটনের অত্যাধুনিক রেফ্রিজারেটর ম্যানুফেকচারিং ও কম্প্রেসর উৎপাদন কারখানা ঘুরে দেখেন।